ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৯ই ফাল্গুন ১৪২৬


যুবককে লাগাতার ধর্ষণ করল তিন সুন্দরী, অতঃপর...


২ অক্টোবর ২০১৮ ১৭:৫২

আপডেট:
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৩:২২

প্রতীকী

সম্প্রতি জিম্বাবুয়ের বুলাওয়াইয়োতে এক যুবককে গণধর্ষণ করে তিন সুন্দরী নারী। বীর্য দস্যুদের খপ্পরে পড়ে গণধর্ষণের শিকার হলেন যুবক শিক্ষক। তার পুরুষাঙ্গসহ বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যাঙ্গ ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় জঙ্গলে ফেলে রেখে পালাল ওই ওই তিন কামুক নারী। এরইমধ্যে বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে স্থানীয় পুলিশ।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পুলিশ জানায়, প্রথমে দক্ষিণ আফ্রিকার নাম্বারপ্লেট যুক্ত একটি টয়োটা কোয়ান্টাম গাড়িতে পেশায় শিক্ষক ওই যুবককে লিফ্ট দেয় দুষ্কৃতীরা। তারপর তাঁর হাত-পা চেপে ধরে চোখ ঢেকে দিয়ে বোতল থেকে মাদক মেশানো পানীয় পান করতে বাধ্য করা হয়। সঙ্গে সঙ্গেই জ্ঞান হারান যুবকটি। এর পরে পালা করে তাঁকে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত তিন মহিলা। সেই সঙ্গে সংগ্রহ করা হয় ওই যুবকের বীর্য।

এরপর, যৌন নিগ্রহের পরে নগ্ন অচৈতন্য যুবককে রাস্তার পাশে ঝোপের ধারে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অপরাধীরা। জ্ঞান ফিরলে ঝোপের উপরে রাখা পোশাক পরে কোন রকমে থানায় পৌঁছান ওই শিক্ষক। পুলিশের কাছে ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে তিন অজ্ঞাতপরিচয় মহিলার বিরুদ্ধে তিনি অভিযোগ দায়ের করেন। জানা গিয়েছে, যৌন নিগ্রহের জেরে যুবকের অণ্ডকোষে গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছে। তাকে স্থানীয় সেন্ট লিউক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালে প্রথম বীর্য দস্যুদের খবর পাওয়া যায়। সেই সময় গোয়েরু ও হারারে শহরের মধ্যবর্তী রাস্তায় তাদের হাতে হেনস্থা হন একাধিক গাড়িচালক। তদন্তে নেমে পুলিশ তিন মহিলাকে গ্রেফতার করে। তাদের হেফাজত থেকে ৩১টি কনডম ভর্তি বীর্য উদ্ধার করা হয়। ২০১৬ সালেও খবরের শিরোনামে ওঠে বীর্য দস্যুরা। বুলাওয়াইয়ো শহরেরই এক যুবককে অপহরণ করার পরে যৌন মিলনে বাধ্য করে তিন মহিলা। তার পরে তার বীর্য নিয়ে চম্পট দেয় তারা। শিক্ষককে যৌন হেনস্থাকারী তিন দুষ্কৃতীর খোঁজে দেশটির পুলিশ তল্লাশিতে নেমেছে।