ঢাকা বুধবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৬


চলন্তিকা বস্তিতে আগুনে সব হারিয়ে নিঃস্ব দেড় শতাধিক পরিবার


২৪ জানুয়ারী ২০২০ ১৪:৫৫

আপডেট:
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০৬:২০

ছবি সংগৃহীত

রাজধানীর মিরপুরে চলন্তিকা বস্তিতে আগুনে পুড়ে গেছে ৩৭৭ টি কক্ষ। কারণ অনুসন্ধানে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ৫ সদস্যের একটি তদন্ত দল। সর্বস্ব হারানো বেশিরভাগ বস্তিবাসীদের অভিযোগ, উচ্ছেদ ষড়যন্ত্রের অংশ এই আগুন। সহায়- সম্বল হারিয়ে ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের দাবিও করেন নিম্নবিত্ত এসব মানুষ। এদিকে দগ্ধ এক নারীকে ঢাকা মেডিকেল ভর্তি এক নারী মারা গেছেন।

আগুনের লেলিহান থাবায় পুড়েছে ঘরের থালা-বাসন-আসবাব-বইপত্র সবই। তবুও পোড়া ছাইয়ে খুড়িয়ে খুড়িয়ে কিছু একটা খুঁজে দেখছে তৃতীয় শ্রেণীর সামিয়া।

সামিয়ার মতো রাজধানীর চলন্তিকা বস্তির অনেক শিশুই হতবাক থাকা-খাওয়ার জায়গা হারিয়ে, প্রিয় পাঠ্যবই হারিয়ে।

এই বস্তির ৩৭৭ টি কক্ষ পুড়ে অঙ্গার হয়ে গেছে হঠাৎ আগুনে। নেভানো চলন্তিকায় ধ্বংসের সাক্ষী হয়ে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে সংগ্রামী জীবনের কাঙ্খিত গ্রাস। পুড়ে যাওয়া স্বপ্নের প্রতিচ্ছবি হয়ে ভাসছে চলন্তিকা।

বস্তির পুড়ে যাওয়া অংশের পাশেই ঝুলছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত বিভাগের আবাসন প্রকল্প তৈরির সাইনবোর্ড। আরেক অংশও পুড়ে ছিল মাস পাঁচেক আগে। বস্তিবাসীরা বলছেন, প্রকল্পের কাজের স্বার্থে স্থানচ্যুত করা হতে পারে এমন আশঙ্কায় ছিলেন তারা।

আগুনের ক্ষয়ক্ষতি ও কারণ জানতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ৫ সদস্যের একটি তদন্ত দল।

এই ঘটনায় আহত হয়ে হাসতাপালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন এক নারী।