ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ২৯শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ই ফাল্গুন ১৪৩০


দীপিকার দশ ‘সেঞ্চুরি’


৩০ জানুয়ারী ২০২৪ ২০:৩৩

সংগৃহিত

একবিংশ শতকে বলিউডের সবচেয়ে সফল অভিনেত্রী কে? এই প্রশ্নের জবাবে অধিকাংশই এক বাক্যে বলে দেবেন দীপিকা পাড়ুকোনের নাম। গ্ল্যামার আর অভিনয়ে তিনি জনপ্রিয়তার আকাশ ছুঁয়েছেন, আবার নানাবিধ পুরস্কারেও ঝুলি ভরেছেন।

তবে আরেকজন অভিনেত্রী রয়েছেন, যার সঙ্গে অদৃশ্য লড়াই চলে দীপিকার। তিনি ক্যাটরিনা কাইফ। তার জনপ্রিয়তাও কোনও অংশে কম নয়। আর বক্স অফিসে সাফল্যেও দুজনের অবস্থান প্রায় সমান। ফলে কে শীর্ষ নায়িকা, সেটা থেকে যায় দোলাচলে।

কিন্তু একটি নিরিখে এগিয়েই রইলেন ‘পিকু’ তারকা। বক্স অফিসে সবচেয়ে বেশি ১০০ কোটির সিনেমা। ২০২২ পর্যন্ত অবশ্য দুজনেরই ১০০ কোটির বেশি আয় করা ছবির সংখ্যা ছিল সমান; ৮টি। তবে গেলো বছরের জানুয়ারিতে ‘পাঠান’ দিয়ে নিজের নবম সেঞ্চুরি হাঁকান দীপিকা। যার ফলে ক্যাটকে ছাড়িয়ে এগিয়ে যান তিনি। সেই তকমা মাত্র ১০ মাস দখলে রেখেছিলেন দীপিকা। নভেম্বরে ‘টাইগার ৩’ ছবির সুবাদে ফের ১০০ কোটির ক্লাবে ঢোকেন ক্যাটরিনা। আর দুজনেরই সেঞ্চুরির সংখ্যা দাঁড়ায় ৯-এ।

দুই মাস না পেরোতেই নিজের অদৃশ্য মুকুট পুনরুদ্ধার করলেন দীপিকা। গত ২৫ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়া তার নতুন ছবি ‘ফাইটার’ ইতোমধ্যে ১০০ কোটির ক্লাবে প্রবেশ করেছে। ফলে ১০টি সেঞ্চুরি নিয়ে ফের চূড়ায় দীপিকা।

বলিউড হাঙ্গামার প্রতিবেদন অনুসারে, ভারতের সব সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে দীপিকাই একমাত্র অভিনেত্রী, যার অভিনীত ১০টি ছবি স্থানীয় বাজারে ১০০ কোটির বেশি আয় করেছে। এছাড়া দেড় দশক ধরে সমান জনপ্রিয়তা ধরে রাখার ক্ষেত্রেও এই তারকা অনন্য।

ভারতের বক্স অফিসে দীপিকার সেঞ্চুরি হাঁকানো ছবিগুলো হলো- ‘পাঠান’ (৫৪৩ কোটি), ‘পদ্মাবত’ (৩০২ কোটি), ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’ (২২৭ কোটি), ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ (২০৫ কোটি), ‘ইয়ে জাওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’ (১৮৮ কোটি), ‘বাজিরাও মাস্তানি’ (১৮৮ কোটি), ‘ফাইটার’ (১২৩ কোটি), ‘গলিও কি রাস লীলা: রাম লীলা’ (১১৮ কোটি), ‘৮৩’ (১০৯ কোটি) ও ‘রেস ২’ (১০০ কোটি)।

উল্লেখ্য, ‘ফাইটার’ ছবিতে দীপিকার বিপরীতে আছেন হৃতিক রোশন। ছবিটি নির্মাণ করেছেন সিদ্ধার্থ আনন্দ।