ঢাকা বুধবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২৪, ৫ই বৈশাখ ১৪৩১


আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড হায়দরাবাদের


২৭ মার্চ ২০২৪ ২২:৪৯

সংগৃহীত

পুরো ইনিংসটিই যেন কোনো টি-টোয়েন্টি ম্যাচের হাইলাইটস। ১৮টি ছক্কা এবং ১৯টি বাউন্ডারি। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ আইপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ স্কোরের রেকর্ড গড়লো। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৭৭ রান সংগ্রহ করেছে হায়দরাবাদের দলটি।

আইপিএলের ইতিহাসে এর আগে সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর ছিল ২৬৩। ২০১৩ সালে পুনে ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে ৫ উইকেট হারিয়ে এই স্কোরটি গড়েছিলো রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। ওই ম্যাচেই ৬৬ বলে ১৭৫ রানের মহাকাব্যিক ইনিংস খেলেছিলেন ক্রিস গেইল।

মজার বিষয় হলো, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ২৭৭ রানের ইনিংস খেললেও কোনো ব্যাটার সেঞ্চুরি করতে পারেননি। ৩৪ বলে সর্বোচ্চ ৮০ রানের ইনিংস খেলেন হেনরিক ক্লাসেন।

রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়মে টস জিতে হায়দরাবাদ অধিনায়ক প্যাট কামিন্সকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া।

ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিধ্বংসী হায়দরাবাদের ব্যাটাররা। ২৫ বলেই ৪৫ রানের জুটি গড়েন দুই ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়াল এবং ট্রাভিস হেড। ১৩ বলে ১১ রান করে আউট হন আগরওয়াল। মূলত এরপরই ঝড় শুরু হয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বোলারদের ওপর।

ট্রাভিস হেড ১৮ বলে পূরণ করেন হাফ সেঞ্চুরি। অভিষেক শর্মা যেন আরও এক কাঠি সরেস। তিনি হাফ সেঞ্চুরি করলেন ১৬ বলে। ২৪ বলে ৬২ রান করে আউট হন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটার হেড। ৯টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৩টি ছক্কা মারেন তিনি। ২৩ বলে ৬৩ রান করেন অভিষেক শর্মা। ৩টি বাউন্ডারির সঙ্গে শর্মা ছক্কা মারেন ৭টি।

এ দু’জন আউট হলে ঝড় তোলেন দুই প্রোটিয়া ব্যাটার এইডেন মারক্রাম এবং হেনরিখ ক্লাসেন। ২৮ বলে ৪২ রান করে অপরাজিত থাকেন মারক্রাম। ৩৪ বলে ৮০ রানে অপরাজিত থাকেন ক্লাসেন। ৪টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৭টি ছক্কার মার মারেন তিনি।

নতুনসময়/এএম


ইনিংস, ম্যাচ, হাইলাইটস, বাউন্ডারি, আইপিএল, সর্বোচ্চ, রেকর্ড