ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬শে মার্চ ২০১৯, ১৩ই চৈত্র ১৪২৫


অবৈধ পথে ভারতে যাওয়ার চেষ্টা, দালালদের হাতে গণধর্ষণের শিকার দুই তরুণী


১০ মার্চ ২০১৯ ২১:১৩

আপডেট:
২৬ মার্চ ২০১৯ ১১:১৬

আটককৃত ধর্ষক

বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামে দুই তরুনীকে গনধর্ষণের ঘটনার ১৮ ঘন্টার মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে ৬ ধর্ষক একই সঙ্গে উদ্ধার হয়েছে দুই তরুণী।

রোববার রাতে দুই তরুনীকে বেনাপোলের পুটখালী গ্রামের শাহ-আলমের বাড়ির পাশের একটি পুকুরপাড়ে রাতভর পালাক্রমে গনধর্ষন তারা। ধর্ষণের শিকার দুই তরুণীর বাড়ি কুষ্টিয়া ও চাদপুরে। তারা অবৈধপথে ভারত যাওয়ার চেষ্টা করছিল।

আটককৃতরা হলো - বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামের রাতুল, পিতা ছাদেক হোসেন, সোহেল পিতা আলম, আব্দুল্লাহ পিতা খালেক সেখ, আরিফ হোসেন পিতা আজাহার হোসেন, শিমুল পিতা মর্শেদ আলী, বিপ্লব পিতা আয়ুব আলী । শাহীন নামে অপর আসামি পলাতক রয়েছে।

স্থানীয়রা জানায় ভারতে আত্নীয় স্বজনের বাড়ি বেড়াতে যওয়ার উদ্দেশ্য তারা পুটখালী দালালদের মাধ্যমে আসে। এরপর তাদের রাত্রে শাহ-আলম বিশ্বাসের বাড়ি আটকে রেখে গভীর রাত্রে একটি পুকুরপাড়ে নিয়ে পালাক্রমে গনধর্ষণ করে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, অবৈধপথে ভারত যাওয়ার উদ্দেশ্য আসা দুই তরুনীকে পুটখালী গ্রামের ৭ জন ধর্ষক সারারাত পালাক্রমে ধর্ষন করেছে। আমি এ খবর জানতে পেরে সুকৌশলে গ্রাম বাসির সহযোগিতায় মীমাংসা করার কথা বলে ধর্ষকদের পুটখালী একটি বাড়িতে হাজির করিয়ে খুব দ্রুত ভাবে আটক করতে সক্ষম হয়েছি।

তাদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় মামলা হয়েছে। ধর্ষনের শিকার দুই যুবতীকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।