ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৮ই ফাল্গুন ১৪২৬


নির্মাণের কয়েক দিন পরেই ধসে পড়ল কলেজের ছাদ


১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৫:৩৩

আপডেট:
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০৩:০৬

প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের নির্মাণকাজ শেষ না হতেই পাঁচ তলার ছাদ ধসে পড়েছে। ছাদ ঢালায়েই দুর্নীতির আশ্রয় নেয়ায় তা ধসে পড়েছে বলে অভিযোগ করছেন স্থানীয়রা। মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার পুরান বাউশিয়া এলাকায় এ ভবন নির্মাণ বিষয়ে অসাধু ব্যবসায়ী ও প্রকৌশলীদের দুর্নীতি তদন্ত করে দেখতে দাবি জানিয়েছেন তারা। বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) পাঁচ তলার ছাদের বড় একটি অংশ ধসে পড়েছে। সেই ধসেপড়া অংশের সব রড ও রিং পাঁচতলায় বাকি অংশে রাখা হয়েছে।

পুরো বিল্ডিংটিতে দেখা যায়, ভিত্তির জন্য ব্যবহার করা হয়েছে প্রি-কাস্ট কংক্রিট পাইল। প্রতিটি ফুটিংয়ে ব্যবহার করা হয়েছে তিনটি করে পাইল, যার প্রতিটির দৈর্ঘ্য ৪৫ ফুট করে। তবে দেখা যায়, ৪৫ ফুট পাইলের কোনটি মাটিতে মাত্র ১৭ ফুট, কোনটি ২৪ ফুট আবার কোনোটি ৩০ ফুট পোতা হয়েছে। পাইলের বাকি অংশ কেটে ওপর থেকে সমান করা হয়েছে। এ অবস্থায় কাঠামোর স্থায়িত্ব আর কাজের মান নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা ধরনের প্রশ্ন। এ বিষয়ে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, প্রথম থেকেই এ ভবন নির্মাণে পাইলিংয়ের কাজে চরম অনিয়ম করতে দেখেছি আমরা। যে কোনো ভবনধসে পড়তে পারে এমন আশঙ্কা করা হয়েছিল। আর সেই আশঙ্কাই সত্যি হলো। ২০১৮ সালের ২৮ মার্চ কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করা হয়। ২০১৯ সালের শেষের দিকে ছাদের ঢালাই শেষ হয়। আর শুরুতেই এ ধসের ঘটনা ঘটল।