ঢাকা শুক্রবার, ১৪ই আগস্ট ২০২০, ৩০শে শ্রাবণ ১৪২৭


কলকাতা বিমানবন্দরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত দুই রোগী, হুলস্থুল কাণ্ড


১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০২:৫৬

আপডেট:
১৪ আগস্ট ২০২০ ০১:৪৪

খোদ কলকাতা বিমানবন্দরে করোনাভাইরাস আতঙ্ক। মারণ এই ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে দমদম বিমানবন্দরে দুই যাত্রীকে আটকানো হল। এদের শরীরে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। জানা গিয়েছে, দুই যাত্রীকে আপাতত বেলেঘাটা আইডিতে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। জানা গিয়েছে, ব্যাংকক থেকে এই দুই যাত্রী দমদম বিমানবন্দরে নামেন। এই ঘটনায় কলকাতা বিমানবন্দর জুড়ে হুলস্থুল বেঁধে যায়। দুই রোগী শরীরে করোনাভাইরাসের জীবাণু পাওয়ার পরেই বিমানবন্দর জুড়ে তীব্র চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

বিমানবন্দর সূত্রে খবর, দুই যাত্রীর মধ্যে একজনকে মঙ্গলবার ও অন্যজনকে বুধবার কোয়ারান্টাইন করা হয়। এয়ারপোর্টে আসা যাত্রীদের থার্মাল স্ক্রিনিং-এর সময় এদের শরীরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ ধরা পড়ে বলে জানিয়েছেন কলকাতা বিমানবন্দরের অধিকর্তা কৌশিক ভট্টাচার্য্য। ইতোমধ্যেই যে দুটি উড়ানসংস্থার কলকাতা ও চিনের মধ্যে সরাসরি উড়ান রয়েছে, তারা তাদের এই উড়ানগুলি বাতিল করেছে। কোনও বিমান নামতে দেওয়া হচ্ছে বিমানবন্দরে।

অন্যদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু ) জানিয়ে দিয়েছে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। মাত্র ১৮ মাস লাগবে ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধকারী টিকা বের করতে। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় হু সদর দফতর থেকেই জানানো হয়েছে। আগামী ১৮ মাস ভয়ঙ্কর সময়। কারণ, এই অদৃশ্য কভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস ততদিনে আরও ভয়াল আকার নিতে চলেছে বলেই বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা। চিনে এই ভাইরাসের হামলায় বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১৩৫০ জন। সংক্রামিত রোগীর সংখ্যা ৬০ হাজার। বিবিসি জানাচ্ছে, করোনা ভাইরাসে চিনের হুবেই প্রদেশে বুধবার একদিনেঅ রেকর্ড সংখ্যক ২৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে। হু আগেই বিশ্ব জুড়ে সতর্কতা ও জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। এ খবর দিয়েছে কলকাতা২৪।

বলা রয়েছে, করোনা ভাইরাসের এই হামলায় মৃত্যুপুরী চিনের যে ছবি উঠে আসছে তা হিমশৈলের চূড়া মাত্র। এর পরের অবস্থা আরও মারাত্মক হতেই পারে। হু মহাপরিচালক টেডরস আদানম গ্যাব্রিয়েনাস জানিয়েছেন, ভাইরাসটি প্রতিরোধ করে এমন টিকার জন্য গবেষণা চলছে। এটি একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। এই খবর দিয়েছে মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ও ফক্স নিউজ।

নতুনসময়/আইকে