ঢাকা সোমবার, ১৭ই জুন ২০১৯, ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৬

ধন্যবাদ সার্জেন্ট হাসান সাহেব 


২০ মে ২০১৯ ০২:৪০

আপডেট:
২০ মে ২০১৯ ০২:৪২

আজ রাত ৮:৩০ এর সময়ে বাড্ডা থেকে খিলগাঁও যাচ্ছিলাম । বিটিভি ভবনের সামনে এক সোহাগ বাসের পাশ দিয়ে ওভারটেক করছি ঠিক তখন ই সে একটা হাইড্রলিক হর্ন বাজিয়ে উঠলো , বিকট শব্দের ভয়ে আমি রাস্তার একদম পাশে চলে যাই । আওয়াজে প্রচন্ড ভয় পেয়ে যাই , আমার ১০ হাজার টাকার হেলমেট এর ভিতরে যে শব্দ শুনতে পেয়েছিলাম আরেকটু হলে আমার কানের পর্দা ফেটে যেতো। ইফতারের পর এমিতেই ঢাকা শহর থাকে ফাকা এরই মাঝে এই অবৈধ হাইড্রলিক হর্ন ব্যাবহার মেনে নিতে পারলাম না ( বরাবরের মতো ই আমি অন্যায় এর প্রতিবাদ করি ) ।

সিদ্ধান্ত নিলাম আবুল হোটেলের সামনে পুলিশপাবো , ওদের সাহায্য নিতে হবে , আমি একটু টেনে চালাচ্ছিলাম , আমি যখন বিটিভি ভবন থেকে প্রায় ৬০০ গজ দুরে রামপুরা বাজার পার হচ্ছি তখন ও শুনতে পাই সে পুরো রাস্তার মানুষ কে বিরক্ত করে ঐ হাইড্রলিক হর্ন বাজাতে বাজতে আসছিলো ।

আবুল হোটেলের মোড়ে পেলাম সারজেন্ট হাসানকে , ওনাকে বললাম একটা সোহাগ পরিবহনের বাস বিটিভি ভবনের সামনে থেকে পুরো রাস্তা টা হাইড্রলিক হর্ন মারতে মারতে আসছে , ততখনে বাস টি ও আবুল হোটেলের সিগনালে আটকা পড়লো । সারজেন্ট আরেকজন পুলিশ কর্মকর্তা জনাব আক্কাস কে ঐ শোহাগ এলিট বাসটি কে থামানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করলো । বাস নাম্বার ঢাকা মেট্রো-ব ১৪৬২২৫ । বাস থামানোর পর সারজেন্ট গিয়ে যখন চালক কে চার্জ করলো তখন বাস চালোক পুরো ঘটনা অস্বীকার করে ঐ নরমাল হর্ন গুলো বাজাতে লাগলো । তখন আমি যখন ওনাকে বললাম বিটিভি ভবনের সামনে আমি যখন আপনাকে ওভারটেক করি তখন আপনি হাইড্রলিক হর্ন বাজিয়েছেন , এবং সামনে একটা Additional SP এর গাড়ী পেছনেও আপনি ঐ হাইড্রলিক হর্ন বাজাচ্ছিলেন ।

তখন সারজেন্ট হাসান সাহেব বুদ্ধি করে বলে তোমার অপরাধের সাক্ষি ও আছে এখন হাইড্রলিক হর্ন কই লাগিয়েছো তা বলো না হলে গাড়ি রেকারে দিবো তখন বাসের হেলপার ঘটনা স্বীকার করে এবং বাসের নিচ থেকে ঐ হর্ন গুলো খুলে নিয়ে আসে । সারজেন্ট হাসান সাহেব হাইড্রলিক হর্ন গুলো জব্দ করে এবং বাসকে আইন অনুযায়ী আর্থিক জরিমানার দন্ড প্রদান করে ।

ফেরার সময় হাসান সাহেব একটা কথা বলে ভাই সবাই যদি আমাদের কে সাহায্য করে তাহলে আমরা আরো ভালো ভাবে আপনাদের সেবা প্রদান করতে পারবো ।

আমি যতবার ই পুলিশের কাছে সাহায্য চেয়েছি , ততোবার ই আমি সাহায্য পেয়েছি । আসলে আমাদের প্রোয়োজন একটু সাহস করে তাদের কাছে জানানো । কিন্তু এখন কার ছেলে পেলেরা ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে ও পুলিশের সাহায্য নিতে বা পুলিশকে কোন ও তথ্য দিতে ভয় পায় । একটু সাহস করে এগিয়ে আসুন দেখবেন অবশই পুলিশ আপনাকে সাহায্য করবেই ।

আর সোহাগ পরিবহন কে বলবো আপনারা একটা সুনামধারী কম্পানি আপনাদের কিছু অসাধু চালক তাদের সুবিধার জন্য এই অবৈধ হাইড্রলিক হর্ন গুলা ব্যাবহার করে রাস্তার সাধারন পথচারীদের ক্ষতি করছে , তাদের বিরুদ্ধে কঠোর বেবস্থা নিন ।

নতুনসময়/আইকে