ঢাকা বুধবার, ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮, ৬ই পৌষ ১৪২৫


৯ বউ টের পাননি সজিব কী জিনিস!


৪ অক্টোবর ২০১৮ ১৯:৪২

আপডেট:
১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ২০:৪৫

 র‌্যাবের ভুয়া এএসপি সজিব

মো. শাহীন আলম ওরফে তারেক ওরফে লিটন ওরফে এএসপি সজিব (২৯) নামে যুবককে নারায়ণগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১১)। সজিব র‌্যাবের ভুয়া এএসপি, সে নিজেকে র‌্যাব সদস্য হিসেবে পরিচয় দিতো।

এ সময় তার কাছ থেকে পুলিশের ভুয়া আইডি কার্ড, বিপুল পরিমাণ পুলিশের ভিজিটিং কার্ড, পুলিশ ও র‌্যাবের ইউনিফর্ম পরিহিত ছবি, এএসপি সজিব নাম সংবলিত পরিচয়দানকারী কার্ড এবং তিনটি মোবাইল জব্দ করা হয়।

মঙ্গলবার রাতে র‌্যাব-১১-এর সিনিয়র এএসপি মো. আলেপ উদ্দিন ও এএসপি শাহ মো. মশিউর রহমানের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেফতার সজিব নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানার এখলাসপুর গ্রামের বাসিন্দা হাজি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহর ছেলে।

বুধবার সন্ধ্যায় সজিবকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাব-১১ সদর দফতরের সহকারী পরিচালক মো. নাজমুল হাসান।

তিনি বলেন, গ্রেপ্তার সজিব মূলত একজন পেশাদার প্রতারক চক্রের সদস্য। তার নিজ এলাকায় প্রতারক লিটন হিসেবে পরিচিত। র‌্যাব-১১ এর এএসপি পরিচয়ে এ পর্যন্ত নয় বিয়ে করেছে সজিব। তার আসল পরিচয় ধরতে পারেনি ৯ বউ।

প্রতারক সজিব দীর্ঘদিন ধরে নারায়ণগঞ্জ এলাকায় র‌্যাবের এএসপি হিসেবে পরিচয় দিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে মামলার তদবির, আসামি ছাড়ানোর জন্য উৎকোচ গ্রহণসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ সংগঠিত করে আসছিল।

শিমরাইল মোড় এলাকায় এএসপি হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে পরিচিত সজিব। সবার বিশ্বাস অর্জনের জন্য বিশেষ কৌশলের আশ্রয় নিত। ফটোশপের মাধ্যমে পুলিশ ও র‌্যাবের বিভিন্ন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার র‌্যাংকব্যাজ পরিহিত ছবির সঙ্গে নিজের ছবি এডিটিং করে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণাসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ সংগঠিত করত সে।

এমনকি প্রধানমন্ত্রী তাকে রাষ্ট্রীয় পদক পরিয়ে দিচ্ছেন সংবলিত একটি ভুয়া ছবি তার মোবাইলে পাওয়া যায়। সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করার জন্য রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মিটিংরত ও পুলিশের ট্রেনিংরত অবস্থার ভুয়া ছবিও ব্যবহার করেছে সে।