ঢাকা বুধবার, ৫ই অক্টোবর ২০২২, ২১শে আশ্বিন ১৪২৯


কাঁচা হলুদের ঔষধি গুণ


৬ আগস্ট ২০২২ ১১:৫০

হলুদ আমাদের কাছে অত্যন্ত পরিচিত একটা মশলা, প্রতিদিন রান্নায় হলুদ না দিলে রান্নাটাই যেন কেমন অসম্পূর্ণ মনে হয়। তবে শুধু রান্নার কাজেই নয়, হলুদের আরো অনেক গুণই আছে, যার বেশির ভাগই আমাদের কাছে অজানা। কাঁচা হলুদের মধ্যে গ্যাস্ট্রো-প্রটেক্টিভ কিছু গুণ থাকে যা খাবার পরিপাকে সাহায্য করে। ফলে হজমের গোলমাল কিংবা গ্যাসের সমস্যার ক্ষেত্রেও কাঁচা হলুদ খুবই উপকার দেয়।

আসুন জেনে নেই কাঁচা হলুদের কিছু ঔষধি গুণাগুণ :

হাড়ের ক্ষয় রোধে

হলুদে থাকা কারকিউমিন হাড়ের ক্ষয় ও হাড়ের গঠনের মধ্যে সামঞ্জস্য বজায় রাখে এবং হাড়কে সুস্থ ও মজবুত রাখে।

ডায়াবেটিস

হলুদে থাকা কারকিউমিন অ্যান্টি-ডায়াবেটিক এজেন্ট হিসেবে কাজ করে ও রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া কাঁচা হলুদ ইনসুলিন হরমোনের ক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে ও অগ্ন্যাশয়কে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

স্ট্রোকের পরে

নিয়ম করে কাঁচা হলুদ খাওয়া আমাদের স্ট্রোকের সম্ভাবনাকে এক ধাক্কায় অনেকটা কমিয়ে দিতে পারে। এছাড়া কাঁচা হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি গুণ স্ট্রোকের পরবর্তী চিকিৎসাতেও অনেক উপকার দেয়।

দাঁতের ক্ষয় রোধ করতে

কাঁচা হলুদ দাঁতের ওপরে থাকা এনামেলের আবরণকে রক্ষা করে ও দাঁতের ক্ষয় থেকে দাঁতকে বাঁচায়। হলুদের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণাবলী থাকায় তা জীবাণু থেকেও দাঁতকে রক্ষা করে।এছাড়া মাড়ি থেকে রক্ত পড়া কমাতে ও মুখের ভেতরে ক্ষত সারাতে কাঁচা হলুদ নিয়ম করে খাওয়া যেতে পারে।

ওজন কমাতে

কাঁচা হলুদের অ্যান্টি-ওবেসিটি প্রপার্টি থাকায় নিয়ম করে কাঁচা হলুদ খেলে তা শরীরে মেদ জমতে বাঁধা দেয়।

সর্দিকাশিতে

হলুদে থাকা কারকিউমিন ইনফ্লুয়েঞ্জা, সর্দিকাশি কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া হলুদ আমাদের শরীরের ইমিউনিটি বাড়ায় ও সর্দিকাশি থেকে আরাম দেয়। কাঁচা হলুদে থাকা ভিটামিন সি-ও সর্দিকাশি কমাতে সাহায্য করে।

অনিদ্রা দূর করতে

কাঁচা হলুদ মেশানো দুধ অ্যামাইনো অ্যাসিড ও ট্রিপটোফ্যান উৎপন্ন করে যা অনিদ্রা রোগের ওষুধ হিসেবে কাজ করে এবং শান্তিপূর্ণ ঘুমে সাহায্য করে।

রক্তচাপ কমাতে

কাঁচা হলুদে থাকা কারকিউমিন আমাদের রক্তনালীকে উন্মুক্ত করে ও রক্ত চলাচলের বাধাকে দূর করে।

চুলের জন্য

কাঁচা হলুদ খুশকির সমস্যা, চুল পড়ার সমস্যা, ইত্যাদি থেকেও আমাদের মুক্তি দেয়।

অ্যালার্জি রোধে

কাঁচা হলুদ অ্যান্টি অ্যালার্জিক হিসেবে কাজ করে।

ব্রণ নিরাময়ে

সকালে খালি পেটে ২ টুকরো কাঁচা হলুদ ও ২টা নিমপাতা একসঙ্গে (আখের গুড়সহ) মিশিয়ে খেলে ব্রণ নিরাময় সম্ভব। দেহের উজ্জ্বলতাও বৃদ্ধি পাবে।