ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই ২০২৪, ২রা শ্রাবণ ১৪৩১


ধামরাইয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম রথযাত্রা আগামীকাল শুরু


৬ জুলাই ২০২৪ ১৯:০৭

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকার ধামরাইয়ে ৪০০ বছরের পুরোনো শ্রী শ্রী যশোমাধবের রথযাত্রা শুরু হবে আগামীকাল ৭ জুলাই। এরপর ১৫ জুলাই উলটো রথ টানার মধ্যে দিয়ে রথযাত্রা শেষ হলেও মেলা চলবে মাসব্যাপী। প্রতিবারের মতো এবারও রথমেলায় যেকোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি থাকবে গোয়েন্দা সংস্থার নজরদারি।

ধামরাইয়ে শ্রী শ্রী যশোমাধবের রথ এশিয়ার সর্ববৃহৎ এবং বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম। এই ঐতিহ্যবাহী রথ উৎসবকে কেন্দ্র করে গোটা ধামরাইয়ে এখন সাজ সাজ রব পড়ে গেছে। মেলায় শত শত স্টল বসেছে। শ্রী শ্রী যশোমাধব মন্দির ও রথোৎসব পরিচালনা কমিটি কর্তৃক ৪১ ফুট উঁচু কাঠের তৈরি এ রথের যাবতীয় ও সাজ-সজ্জার কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

শ্রী শ্রী যশোমাধব দেবের রথযাত্রার ইতিহাস থেকে জানা যায়, বাংলা ১০৭৯ সালে বিগ্রহ প্রতিষ্ঠার পর থেকে ১২০৪ সাল পর্যন্ত সুদীর্ঘ ১২৫ বছর পর্যন্ত রথযাত্রা চলে এসেছে। তারপর বালিয়াটি জমিদারদের পৃষ্ঠপোষকতায় রথযাত্রা অব্যাহত থেকেছে আরও ১৪৬ বছর। বাংলা ১৩৫০ সালে জমিদারি প্রথা বিলোপের পর মির্জাপুরের দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা এগিয়ে আসেন রথযাত্রার উৎসব আয়োজন যা আজও অব্যাহত আছে। তারই সুযোগ্য উত্তরসূরি শ্রী রাজীব প্রসাদ সাহা, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি এবং শ্রী শ্রী যশোমাধব মন্দির কমিটির সহযোগিতায় শ্রী শ্রী যশোমাধব দেবের সেবা ও রথ পরিচালনায় দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

 

রথ উৎসব উপলক্ষ্যে কায়েতপাড়াস্থ রথ খোলায় ও রথের সামনে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হবে। এ সময় ডাক ঢোল কাসার ঘণ্টা ও মহিলাদের উলু ধ্বনিতে মাধব মন্দিরের বর্তমান প্রধান পুরোহিত উত্তম কুমার গাঙ্গুলী ধর্মীয় অনুষ্ঠান সম্পন্ন করবেন। দুপুরে মাধব মন্দিরে ভোগ রাগের পর প্রসাদ বিতরণ করা হবে আগত হাজারও ভক্ত বৃন্দের মাঝে।

 
 

বিকেলে রথের সামনে লাখো ভক্তের উপস্থিতিতে উদ্বোধনী আলোচনা সভা শেষে বিকেল পাঁচটা পনেরো মিনিটে রথটানা হবে বলে জানান, মন্দির কমিটির দপ্তর সম্পাদক ও ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি সাংবাদিক রনজিত কুমার পাল (বাবু)। বিকেল ৪টায় মাধব মন্দির থেকে মাধব বিগ্রহসহ অন্যান্য বিগ্রহগুলি নিয়ে এসে সারাবছর যেখানে রথটি থাকে সেই রথ খোলায় রথের ওপর মূর্তিগুলি স্থাপন করা হবে। এরপর বিকেল ৪টার দিকে রথের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠান রথখোলায় অস্থায়ী স্থাপিত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে।

 

এবার রথযাত্রা’র উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ড. সামন্ত লাল সেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ঢাকা-২০ এর সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ বেনজীর আহমদ ও বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার মান্যবর শ্রী প্রণয় কুমার ভার্মা।

অনুষ্ঠানের আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি রথ উৎসবের পুরোহিতের হাতে প্রতীকী রশি প্রদানের মাধ্যমে রথ টানার আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করবেন। এই রথটি মূর্তি সমেত লাখো ভক্ত নর-নারী পাটের রশি ধরে কায়েত পাড়ার রথ খোলা থেকে প্রধান সড়ক দিয়ে টেনে পৌর এলাকার গোপন ঘরে নেওয়া হবে। এখানেই রথটি প্রতিবছরের ন্যায় ৯ দিন অবস্থান করবে। মাধব ও অন্যান্য বিগ্রহগুলি রথ থেকে নামিয়ে নিয়ে ৯ দিন পূজারিদের দ্বারা পুজিত হবে কথিত মাধবের শ্বশুরালয় যাত্রাবাড়ি মন্দিরে। ৯ দিন পর আগামী ১৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে উলটো রথযাত্রা উৎসব। পূর্বের ন্যায় মাধব ও অন্যান্য দেব-দেবী বিগ্রহ রথে চড়িয়ে ১৫ জুলাই বিকেল ৬টায় টেনে আনবে পূর্বের স্থান ধামরাই পৌর এলাকার কায়েত পাড়াস্থ রথখোলায়। এখান থেকে মূর্তিগুলো চলে যাবে পুরোনো মাধবের নিজ আলয় মন্দিরে। রথ খোলায় রথটি সারা বছর রাখে বলে এ স্থানটির নামকরণ হয়েছে রথ খোলা ময়দান।

যশোমাধব মন্দির পরিচালনা পর্ষদের দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক রনজিত কুমার পাল বলেন, ধামরাইয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম রথোৎসব মাসব্যাপী চলবে। আগামী ৭ জুলাই রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে। এবং ১৫ জুলাই উল্টোরথের মাধ্যমে রথযাত্রার ইতি ঘটবে।

রথযাত্রার সর্বশেষ প্রস্তুতির বিষয়ে ধামরাই যশোমাধব মন্দির পরিচালনা পর্ষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নন্দ গোপাল সেন বলেন, রথযাত্রা ও রথমেলা উপলক্ষে রথের সাজসজ্জা ও পরিচর্যার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। রঙের কিছু কাজ চলছে। বাকি কাজও দ্রুত শেষ হবে। এরপর রথটানা হবে। এ ছাড়া মাসব্যাপী মেলা হবে এর মধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

ধামরাই থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলাম শেখ বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম বড় উৎসব রথযাত্রাকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তার সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় সব জায়গায় পুলিশ মোতায়েন করা থাকবে। আমরা নিশ্ছিদ্রভাবে রথের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবো।

ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খান মো. আব্দুল্লা আল মামুন বলেন, রথযাত্রা আয়োজনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে এই মেলাকে সুষ্ঠু ও নিরাপদভাবে সম্পন্ন করতে। আশা করছি প্রতি বছরের ন্যায় এবারও অত্যন্ত সুন্দরভাবে আমরা এই মেলা উদ্‌যাপন করতে পারবো।

শ্রী শ্রী যশোমাধব মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি মেজর (অব.) জেনারেল জীবন কানাই দাসের সভাপতিত্বে রথযাত্রা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, ঢাকা জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ধামরাই খান মো.আব্দুল্লা আল মামুন, ধামরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম কবির ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ।