ঢাকা শুক্রবার, ২২শে মার্চ ২০১৯, ৯ই চৈত্র ১৪২৫


পুত্রের কারণে প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ !


৮ মার্চ ২০১৯ ২০:৪৭

আপডেট:
২২ মার্চ ২০১৯ ১০:৫৬

মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমানের ছেলে হলের আবাসিক এক শিক্ষার্থীকে ‘দুই টাকার ছাত্র’ বলেছে। এমন অভিযোগে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার (৮ মার্চ) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। বিকালেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন এই অধ্যাপক।

প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবিতে হল অফিস প্রায় দুই ঘণ্টা অবরোধ করে রাখেন তারা। এসময় ছেলেসহ ওই প্রভোস্ট অবরুদ্ধ ছিলেন।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। পরে প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিজানুর রহমান ছাত্রদের কাছে ক্ষমা চান এবং পদত্যাগের ঘোষণা দেন

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিজানুর রহমানের ছেলে শুক্রবারে জুমার নামাজ পড়তে যান। সামনের কাতারে যেতে গিয়ে তিনি রায়হান নামে এক ছাত্রের মাথায় পা লাগান। পরে নামাজ পড়া শেষে শিক্ষার্থী রায়হান তার পরিচয় জানতে চান। এসময় হল প্রভোস্টের ছেলে তার বাবাকে ডেকে আনেন। বাবার উপস্থিতিতেই ওই ছাত্রকে তিনি বলেন ‘দুই টাকার ছাত্র হয়ে আমার পরিচয় জানতে চাচ্ছে।’

এ কথায় ক্ষুব্ধ হয়ে হলের সব শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে হল প্রভোস্ট ও তার ছেলেকে হল অফিসে আটকে বিক্ষোভ করতে থাকেন। শিক্ষার্থীরা আজকের মধ্যেই তার পদত্যাগ দাবি করেন। এসময় তিনি পদত্যাগ করার ঘোষণা দেন। একটি পদত্যাগ পত্র লিখে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসায় গেছেন বলেও নিশ্চিত হওয়া গেছে।

হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও আসন্ন ডাকসু হল সংসদের ভিপি পদপ্রার্থী শাহরিয়ার সিদ্দিক শিশিম বলেন, ঘটনা সত্য, হল প্রাধ্যক্ষের ছেলে শিক্ষার্থীদের দুই টাকার ছাত্র বলেছে। সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রাধ্যক্ষের ছেলে ও স্যারের ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেছে। স্যার ক্ষমা চেয়ে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী জানান, এমন একটি ঘটনা ঘটছিল। সেখানে প্রক্টরিয়াল টিম ছিল। পরে যে অভিযুক্ত সে ক্ষমা চেয়েছে বলে আমি জানি।