ঢাকা বুধবার, ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮, ৬ই পৌষ ১৪২৫


জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অধিনায়ক মিরাজ!


৯ অক্টোবর ২০১৮ ১৮:২৮

আপডেট:
৯ অক্টোবর ২০১৮ ১৮:৪২

সামনে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ব্যস্ত সূচি। এতটুকু অবসরের সময় নেই মাশরাফিদের। চলতি মাসেই জিম্বাবুয়ে দিয়ে সেই ব্যস্ততার শুরু। আগামী বছর ৩০ মে লন্ডনের ওভালে পর্দা উঠবে আইসিসি ২০১৯ বিশ্বকাপের। হাতে আছে কয়েকটা মাস।

অংশগ্রহণকারী দেশগুলো আপাতত নিজেদের দল গোছাতে ব্যস্ত। আর এমন সময়ে বাংলাদেশ শিবিরকে ইনজুরি তাড়া করে বেড়াচ্ছে। সিনিয়র পাঁচ ক্রিকেটারের পাশাপাশি জুনিয়রদের মধ্যে ১২-১৩ জন ইনজুরিতে।

এমন পরিস্থিতে আগামী ২১ অক্টোবর থেকে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি এবং দল নিয়ে পরীক্ষার জন্য আসন্ন সিরিজকেই পরিক্ষাগারের গিনিপিক ভাবছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিশ্বকাপের দলগঠন নিয়ে কথা উঠলে পাপন বলেন,‘যেহেতু আমাদের সামনে ওয়ার্ল্ড কাপ। সে জন্য জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দল নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করা হবে।’

যেহেতু সাকিব দীর্ঘদিনে জন্য মাঠের বাহিরে চলে গেলেন, তামিমও ইনজুরিতে সেহেতু আসন্ন সিরিজে সুযোগ পেতে পারেন তরুণরা। নতুনদের সুযোগ দেওয়ার বিষয়ে পাপন জানান, তরুণদের প্রাথমিক স্কোয়াডে রেখে দেখবেন। যদি তারা ভাল করেন তাহলে মূল দলে রাখবেন।

এর আগে তরুণদের সুযোগ দেওয়া নিয়ে একই কথা বলেছিলেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান। তবে তরুণদের সুযোগ দিলেও কোনো রিস্ক নেবেন না বলেও জানিয়ে রেখেছিলেন তিনি। আকরাম খান জানান,‘সিনিয়ররা যেহেতু নেই, যার জন্য নতুনদের কথা আমরা চিন্তা করবো। কিন্তু সেই সঙ্গে আমাদের ম্যাচ জেতার জন্য কাকে খেলাতে হবে কাকে বাদ দিতে হবে সেটাও আমাদের মাথায় আছে। এই বিষয়ে কোনো রিস্ক কিন্তু নেওয়া যাবে না।’

আগত সিরিজে অধিনায়কত্বেও আসতে পারে চমক! টেস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মেহেদী হাসান মিরাজকে অধিনায়ক হিসেবে দেখা যেতে পারে। অনুর্ধ ১৯ যুব বিশ্বকাপে তার অধিনায়কত্বেই বাংলাদেশ সেমিফাইনালে পৌচ্ছেছিল। তাই আগামী টাইগারদের উত্তরসরি হিসেবে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অধিনায়কত্ব করতে দেখা যেতে পারে মিরাজকে।

২০১৬ তে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে ২৪২ রানের পাশে ১২ উইকেটে বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে তোলার নায়ক ঘরোয়া ক্রিকেটেও বিবেচ্য হন অল রাউন্ডার হিসেবে। অথচ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোন ফরমেটেই অল রাউন্ডারের স্বাক্ষর রাখতে পারেননি মেহেদী হাসান মিরাজ। টেস্টে বোলিং বিশ্বমানের, কিন্তু ব্যাটিংয়ে গড় ১৮.২১, ওয়ানডে ম্যাচে ব্যাটিং গড়ও কাছাকাছি ( ১৮.২১), টি-২০তে সেখানে ব্যাটিং গড় মাত্র ৯.৩৩। শর্টার ভার্সনে অল রাউন্ড পারফর্ম না করে টিকে থাকা কঠিন, তা মানছেন মিরাজ।

সাকিবের উত্তরসূরীর লক্ষ্য এখন একটাই, তিন ফরমেটের ক্রিকেটে নিজেকে প্রস্তুত করা। নিজেকে তিন ফরমেটের ক্রিকেটে অপরিহার্য তালিকায় রাখতে এখন তার ধ্যান জ্ঞান একটাই- ‘চেষ্টা করছি সব ফরম্যাটে নিজেকে তৈরি করার। বাংলাদেশকে কিছু দিতে চাই, এটাই আমার লক্ষ্য থাকবে। শেখারতো শেষ নেই, তাই প্রতিদিন কিছু না কিছু শিখছি।’

এখন ক্রিকেট ভক্তদের চিন্তা, বেশি পরিক্ষা চলাতে গিয়ে ঘরের মাঠে পঁচা শামুকে যেন পা না কাটে।

 

এমএ