ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩শে অক্টোবর ২০১৮, ৮ই কার্তিক ১৪২৫


জীবনমান উন্নয়নের মধ্য দিয়ে সরকার অসাধ্য সাধন করেছে: প্রধানমন্ত্রী


১১ অক্টোবর ২০১৮ ১৮:৫১

আপডেট:
১১ অক্টোবর ২০১৮ ১৮:৫৫

ছবি সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার দেশজুড়ে রাস্তাঘাট, সেতু ও কালভার্ট নির্মাণের মধ্য দিয়ে সারা বাংলাদেশে একটি যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে।
দেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়নের মধ্য দিয়ে বর্তমান সরকার অসাধ্য সাধন করেছে।

বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলায় অর্ধশতাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এই প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে-৬টি জেলায় ৬টি নগর মাতৃসদন, ৫টি জেলায় ১০টি নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্র, ৭টি জেলায় ৭টি সেতু ও একটি জেটি, ৮টি জেলার ৯টি উপজেলায় সম্প্রসারিত উপজেলা পরিষদ প্রশাসনিক ভবন ও হলরুমসহ ২০টি জেলায় ৩৩টি

বর্তমান সরকারের স্বাস্থ্য, প্রশাসন ও যোগাযোগসহ বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের প্রসঙ্গ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এভাবে আমরা সারা বাংলাদেশে একটি যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছি। যার ফলে একদিকে যোগাযোগ, অন্যদিকে উপজেলায় মানুষের সরকারি সেবাপ্রাপ্তির সুবিধা, আবার মাতৃসদনের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে কাজ আমরা করছি।’

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সহ জনগণের জীবনমান উন্নয়নে সরকারের নেয়া নানামুখি পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীতে কোনো দেশ এত দ্রুত এতটা উন্নতি করে, এমনটা আমার জানা নেই। কিন্তু আমরা সেই অসাধ্য সাধন করেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘সরকারের পরিকল্পিত উদ্যোগগুলোর সুফল আজ দেশবাসী ভোগ করছে। গড় আয়ু বৃদ্ধি পেয়েছে। শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার কমে এসেছে। স্বাস্থ্যসেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছে। সবাই এখন কমিউনিটি স্বাস্থ্য ক্লিনিক থেকে সেবা নিতে পারছে। গ্রামের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর দুঃখ-দুর্দশা দূর করতে নানারকম প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।’

এর আগে গণভবনে ঢাকাস্থ স্পেনের দূতাবাস কর্তৃক স্প্যানিশ ভাষায় প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্নজীবনী’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী।

মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রমানের আত্মজীবনীর ওপর প্রকাশিত বইগুলো ভবিষ্যতে গবেষণার বড় খোরাক হবে। যত বেশি ভাষা সাহিত্যের চর্চা হবে তত বেশি সংস্কৃতির বিকাশ হবে। এই বই স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস স্মরণ করিয়ে দেবে। এখন পর্যন্ত প্রধান ১০টি বিদেশি ভাষায় বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী' অনুবাদ হয়েছে। আরো বেশ কয়েকটি ভাষায় অনুবাদের কাজ চলছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র স্প্যানিশ সংস্করণ প্রকাশের উদ্যোগ নেয়ায় স্পেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত আলভারো ডি সালাস জিমেনেজ ডি আজকারাতকে ধন্যবাদ জানান শেখ হাসিনা। বইটির স্প্যানিশ অনুবাদক বেঞ্জামিন ক্লার্ককেও ধন্যবাদ জানান তিনি। এর মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী স্পেন সরকারের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীসহ প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরকেএইচ