ঢাকা শুক্রবার, ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮, ১লা পৌষ ১৪২৫


শার্শার ফিলিং ষ্টেশনের মালিকের বিরুদ্ধে তেল চুরির অভিযোগ


৬ ডিসেম্বর ২০১৮ ২১:৩৯

আপডেট:
১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ ২২:০৬

প্রতিকী ছবি

শার্শার জোহরা ফিলিং ষ্টেশন তেল পাম্পের মালিক ডাক্তার হাবিবুর রহমান বিরুদ্ধে কোটি টাকার তেল চুরির অভিযোগ ওঠেছে।এটি করেছেন তারই পাম্পের সাবেক ম্যানেজার আহসান হাবিব বাবলু।

 

পাম্পের ম্যানেজার বলেন, ডাক্তার হাবিব এক বিশেষ কায়দায় পাম্পের তেলে ঘাট বেধে এ তেল চুরির ফাঁদ পাতে। বিগত দুই বছরের হিসাব অনুযায়ী তিনি ৭২ লাখ টাকার ক্রেতাদের তেল চুরি করেছে।

 

প্রতি ১০০ লিটারে তিনি ২ থেকে ৩ লিটার করে পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল চুরি করে বিক্রি করে। তিনি তেল চুরি সহ শার্শার বাঁগআচড়ায় জোহরা নামে একটি ক্লিনিক হাসপাতাল খুলেছেন ।


স্বামী -স্ত্রী দুইজন এই ক্লিনিকের মালিক। সেখানে রুগীদের নানা ধরণের মিথ্যে টেষ্ট দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে তারা।

বাবুল আর বলেন , আমাদের সকাল থেকে গভীর রাত পর্যান্ত খাটিয়ে তিনি মাত্র সাড়ে ৭ হাজার টাকা বেতন দিত। ২ বছর আগে আমাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেন। টাকা চাইলে আমাদের আকস্মিক ভাবে ২ /৪ হাজার টাকা হাতে দিত।

 

তেল পাম্পের কর্মচারীদের সাথে কথা বললে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুকরা বলেন, এ তেল পাম্পে পুকুর চুরি হয়। আমাদের মুখ খোলার উপায় নেই। মালিক আমাদের দিয়ে এসব চুরির কাজ করিয়ে থাকে। কথা বললে চাকরি থাকে না।

 

জোহরা ফিলিং ষ্টেশন এর মালিক ডাক্তার হাবিবুর রহমান বলেন, আমার পাম্পে চুরি হয় না। বাবুল ও মিলন নামে দুইজন যে ম্যানেজার ছিল তারা এখান থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা চুরি করেছে। এ চুরির টাকা দিয়ে ইতিমধ্যে বাবুল ১২ লাখ টাকা দিয়ে একটি বিল্ডং হাকিয়েছে।

 

দৈনিকের টাকা দৈনিক হিসাব হওয়ার পরও তারা কিভাবে টাকা চুরি করে এমন প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারিনি ।

এফ,আর